Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের জন্য ‘মাল্টিপল অ্যাকাউন্ট সাপোর্ট’ সুবিধা আনল ইমো

ইমো সম্প্রতি বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের জন্য ‘মাল্টিপল অ্যাকাউন্ট সাপোর্ট’ ফিচার নিয়ে এসেছে। এ ফিচারের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা একটি হ্যান্ডসেটেই নিরাপদে ও স্বাচ্ছন্দ্যে তাদের আলাদা ইমো অ্যাকাউন্টে লগ ইন ও পরিবর্তন করতে পারবেন। এই সুবিধাটি বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের জন্য বিশেষভাবে যুক্ত করা হয়েছে, যার ফলে একই পরিবারের একাধিক সদস্য আরো স্বাচ্ছন্দ্যে একটি মোবাইলের মাধ্যমেই প্রত্যেকের নিজস্ব ইমো অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করতে পারবেন।

বাংলাদেশে স্মার্টফোন ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে, তবে এক্ষেত্রে পূর্ণ সম্ভাবনার বাস্তবায়ন এখনও বাকি। প্রায়শই দেখা যায় যে, পরিবারের একাধিক সদস্য মিলে একটি মোবাইল ফোন ব্যবহার করছেন। ইমো পরিচালিত একটি জরিপের ফলে দেখা যায়, বাংলাদেশে ‘বাবা-মা’দের শতকরা ৬৪ ভাগ ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত স্মার্টফোন নেই, এবং শতকরা ৪৯ ভাগ ইমো ব্যবহারকারী যোগাযোগের প্রয়োজনে তাদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ফোন শেয়ার করে থাকেন। জরিপের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, এই সব ইমো ব্যবহারকারীরা একই ডিভাইসে অ্যাকাউন্ট পরিবর্তন করে ব্যবহারের সুবিধা পেতে আগ্রহী।

‘মাল্টিপল অ্যাকাউন্ট সাপোর্ট’ সুবিধার ফলে ব্যবহারকারীরা এখন একই ডিভাইসে সর্বোচ্চ পাঁচটি আলাদা অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করতে পারবেন। ‘মি’ সেটিং পেইজে সদ্য যুক্ত হওয়া ‘সুইচ অ্যাকাউন্ট’ ট্যাবে ক্লিক করে এই সুবিধাটি উপভোগ করা যাবে। নতুন অ্যাকাউন্ট সংযুক্তির পর ব্যবহারকারীরা কোনো প্রকার রিস্টার্ট বা পুনরায় লগইন’র ঝামেলা ছাড়াই এক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে সুইচ করতে পারবেন। এক্ষেত্রে, নতুন অ্যাকাউন্ট যোগ করার সময় অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ওটিপি ভেরিফিকেশনের প্রয়োজন হবে।

স্থানীয় চাহিদা অনুসারে নিজেদের পণ্য ও সেবা বাজারে নিয়ে আসার মাধ্যমে বাংলাদেশে ইমো বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। বাংলাদেশের ইমো ব্যবহারকারীরা গত বছর ৯৬ বিলিয়ন বা ৯৬০০ কোটির বেশি মেসেজ এবং ২৬ বিলিয়ন বা ২৬০০ কোটি অডিও-ভিডিও কল করেছেন।

ব্যবহারকারীদের মাঝে ইমোর এই জনপ্রিয়তার অন্যতম কারণ হল ইমো’র ডাটা-সাশ্রয় এবং দুর্বল নেটওয়ার্কেও নিরবচ্ছিন্ন সংযোগ সুবিধা। হালের অন্যান্য অ্যাপের তুলনায় ইমো প্রায় ২০ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত ডাটা সাশ্রয় করে থাকে। ২০২০ সালে বাংলাদেশের ব্যবহারকারীদেরকে অডিও-ভিডিও কলে ১৫০ মিলিয়ন গিগাবাইট পর্যন্ত ডাটা সাশ্রয়ে সাহায্য করেছে ইমো। এমন চমৎকার সব ফিচারের সাথে নতুন যুক্ত হওয়া ‘মাল্টিপল অ্যাকাউন্ট সাপোর্ট’ সুবিধাটি ইমো’র জনপ্রিয়তাকে আরো বাড়িয়ে তুলবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।