Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

প্রিমো ডি নাইন হ্যান্ডস অন রিভিউ- Primo D9

প্রিমো ডি সিরিজের ফোনেগুলো খুব সাশ্রয়ী হওয়ায় সবার কাছে অতি পরিচিত। মূলত প্রিমো ডি সিরিজের স্মার্টফোনে গুলো এন্টি লেভেলের স্মার্টফোনে হিসেবে রেখেছে ওয়ালটন। সম্প্রতি ওয়ালটন ডি নাইন বাজারে রিলিজ করছে। মাত্র ২,৯৩০ টাকায় পাওয়া যাবে ডিভাইসটি। তবে দাম হিসেবে এর স্পেসিফিকেশন’কে খারাপ বলা যাবে না। সাধারন মৌলিক ইন্টারনেট সার্ফিং, ইউটিউবে ভিডিও ব্রাউজিং করতে চান, তাদের জন্য এই ওয়ালটন প্রিমো ডি৯ উপযুক্ত ডিভাইস বলা যায়। আমরা এখন এই স্মার্টফোনটির বিস্তারিত সম্পর্কে জানব। অন্যসব স্মার্টফোন এর মত এটি নিশ্চয়ই সেরকম হেভি ইউজ এর জন্য ব্যবহার করা যাবে না।

একনজরে ওয়ালটন প্রিমো ডি নাইন

  • অ্যান্ড্রয়েড অরিও ৮.১ গো এডিশন
  • ৫১২ এমবি র‍্যাম, ৮ জিবি রম
  • ৪ ইঞ্চি ডাব্লিউভিজিএ স্ক্রীন
  • ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর সিপিইউ
  • মালি টি-৮২০ জিপিইউ
  • ১,৪০০ এমএএইচ লিথিয়াম অয়ন ব্যাটারি
  • নোটিফিকেশন লাইট
  • ২৯৩০ টাকা

বক্সে যা যা থাকছে

  • প্রিমো ডি৯ ডিভাইসটি
  • চার্জার এডাপ্টার
  • (২.০) ইউএসবি কেবল
  • ইয়ারফোন
  • ডিসপ্লেতে যুক্ত প্রটেকশন গ্লাস
  • ওয়ারেন্টি কার্ড
  • সেফটি ইন্সট্রাকশন

ডিসপ্লে ও বডি

ডিসপ্লেটিতে পাওয়া যাবে ৮০০*৪৮০ পিক্সেল রেজুলেশন এর ৪” ইঞ্চি ডাব্লিউ-ভিজিএ ডিসপ্লে; যেখানে ভিউইং অ্যাঙ্গেল একটু নেগেটিভ মনে হতে পারে।

ডিভাইসটির ডিজাইনে পাওয়া যাবে নতুনত্ব, সম্পূর্ণ বডি জুড়ে একটা কার্ভি তথা বাঁকানো ফিনিস আনা হয়েছে; যা একে এই ছোটো ডিভাইসটিকে করেছে অনেক আকর্ষণীয় এবং কমপ্যাক্ট।  ডিভাইসটি অনেক পাতলা কেননা এর ১৪০০ এমএএইচ ব্যাটারি এর সাথে এর ওজন মাত্র ১১৫ গ্রাম।

হার্ডওয়্যার

স্পেসিফিকেশন এর দিক দিয়ে এই ডিভাইসটি একদম সিম্পল বলা চলে।  এতে পাওয়া যাবে একটি ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর সিপিইউ, মালি টি-৮২০ জিপিইউ।  সিস্টেমকে ব্যাকআপ দিবে ৫১২ এমবি র‍্যাম এবং ৮ জিবি রম।  মাত্র ২৯৩০ টাকার এই বাজেট ফোনেও পাওয়া যাবে অ্যান্ড্রয়েড অরিও ৮.১ গো এডিশন।

বেঞ্চমার্ক

ক্যামেরা

ডিভাইসটি ক্যামেরার দিক দিয়ে বলতে গেলে এতটা ভালনা। আসলে এই দামে এতো বেশি কিছু আশা করাও ঠিক না।  এর রিয়ার প্যানেলে থাকছে একটি ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সাথে ফ্ল্যাশ এবং এর ফ্রন্ট প্যানেলে থাকছে একটি ০.৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

কালার

স্মার্টফোনটি বাজারে পাওয়া যাবে দুইটি আকর্ষণীয় কালারে।  আর এগুলো হল লাল এবং কালো। তো দারুন এই দুইটি কালারের মধ্যে যে কালারটি আপনার ব্যক্তিত্তের সাথে মানায়, সেটি পছন্দ করে নিতে পারেন।

নোটিফিকেশন লাইট

ডিভাইসটিতে একটি লালা রঙের নোটিফিকেশন লাইট রয়েছে।

গ্রাহকদের দৃষ্টিকোন থেকে প্রিমো ডি নাইনের ফিচার গুলো তার বাজেটের থেকে যথেষ্ট মনে হয়েছে, কেননা মাত্র ২,৯৩০ টাকায় তথা ফিচার ফোনের মুল্যে এই স্মাটফোনেটি পাওয়া যাচ্ছে। যারা স্বল্প মূল্যে স্মার্টফোনে কিনবেন ভাবছেন। তারা প্রিমো ডি নাইন ডিভাইসটি দেখতে পারেন।