Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

ওয়ালটন প্রিমো আর ফাইভ প্লাস হ্যান্ডস অন রিভিউ (Primo R5+)

‘মেড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত সম্প্রতি ওয়ালটন প্রিমো আর ফাইভ এর উন্নত ভার্সন প্রিমো আর ফাইভ প্লাস স্মার্টফোনটি রিলিজ হয়েছে। এই ফোনটি তৈরি হয়েছে গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ কারখানায়। প্রিমো আর ফাইভের সাথে বডি ডায়মেনশন, ওয়েট মিল থাকলে ও কালার এবং হার্ডওয়্যারে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। ৩ জিবি ডিডিআর থ্রী র‍্যাম আর আকর্ষণীয় স্লিক ডিজাইন এর মূল আকর্ষণ। ডিভাইসটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০,৯৯৯ টাকা।

একনজরে প্রিমো আর৫ প্লাস

  • ফোরজি সাপোর্টেড
  • ৫.৭২ ইঞ্চি ফুল ভিউ এইচডি আইপিএস ১৮:৯ রেশিও ডিসপ্লে
  • ২.৫ডি কার্ভড গ্লাস
  • অ্যান্ডোয়েড ৮.১ অরিও অপারেটিং সিস্টেম
  • ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াড-কোর প্রসেসর
  • ৩ জিবি ডিডিআর থ্রী র‍্যাম; ১৬ জিবি রম
  • রিয়ারে বিএসআই সেন্সর যুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সাথে এলইডি ফ্ল্যাশ
  • ফ্রন্টে বিএসআই ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • ৩০০০ এমএএইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি
  • ওটিজি সাপোর্টেড

বক্সের মধ্যে যা যা থাকছে

  • প্রিমো এক্স৫ প্লাস হ্যান্ডসেটটি
  • ব্যাককভার
  • এক্সট্রা প্রোটেকশন পেপার
  • অ্যাডাপটার
  • ইউএসবি কেবল
  • ইয়ারফোন
  • সিম কার্ড ইজেক্টর
  • ওয়ারেন্টি কার্ড ও সেফটি ইন্সট্রাকশন

ইউজার ইন্টারফেস

প্রিমো আর ফাইভ প্লাস এর  ইউজার ইন্টারফেস একদম সিম্পল ও ফ্রেন্ডলি। এতে কাস্টমাইজ থিম ব্যাবহার করা হয়েছে।

ডিজাইন

এর ডিজাইন যথেষ্ট এলিগেন্ট ছিলো। পুরো বডি স্লিক ডিজাইন হওয়ায় আলোতে একটা গ্লোসি লুক পাওয়া যায়। ডিসপ্লেটির চারদিকে ২.৫ ডি কার্ভড হওয়ায় স্মার্টফোনটি হাতে নিলে সাইড দিয়ে সুন্দর একটি রাউন্ড কাট অনুভব করা যাবে। রিয়ার প্যানেলে ক্যামেরা এবং ফিংগার প্রিন্ট সেন্সর মডিউল দেখতে খুবই সুন্দর এবং আকর্ষনীয়। ব্যাক সাইডটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট ম্যাগনেটিক তাই ডিভাইসের সাথে ব্যাক কভারটি উইজ করা যেতে পারে। ডিভাইসটির আপার প্যানেলে রয়েছে ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক, ২.০ ইউএসবি পোর্ট এবং হেডফোন জ্যাক। বাম সাইডে রয়েছে ভলিউম এবং পাওয়ার বাটন।

ডিভাইসটি লম্বায় ১৫২.৪ মিলিমিটার, প্রস্থে ৭২.১৮ মিলিমিটার। ডিভাইসটির পুরুত্ব ৮.৩ মিলিমিটার। ব্যাটারিসহ এই ডিভাইসটির ওজন ১৪৫ গ্রাম। ডিভাইসটিকে ব্যাক আপ দিবে একটি ৩০০০ এমএএইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি,ব্যাটারিটি নন-রিমুভেবল। আর ডিভাইসটির ব্যাকপার্টও নন রিমুভেবল। স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে নিচের দিকে পাওয়া যাবে একটি ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর। ডিভাইসটি কালো ও ব্লু কালারে বাজারে পাওয়া যাবে।

হার্ডওয়্যার

একইভাবে প্রসেসর হিসেবে এতে থাকছে মিডিয়াটেক MT6739 চিপসেট ; যার বাজ স্পীড ১.২৭ গিগাহার্জ- আর এটি একটি কোয়াড কোর প্রসেসর। ডিভাইসটির টোটাল ২৮৭৪ এম্বি র‍্যাম এর ভেতর সাধারন আপস ইন্সটলেশন এর পর ১৫৩৫ এম্বি এর মত তথা ৫৫% র‍্যাম ফাকা থাকে। ব্যাবহার যোগ্য ইন্টারনাল স্টোরেজ পাওয়া যায় ১০.১৮ জিবি।

এন্টুটু বেঞ্চমার্ক অ্যাপে এর স্কোর এসেছে ৩৯২৫৪ ও গিক বেঞ্চমার্ক অ্যাপে সিঙ্গেল কোরে এর স্কোর এসেছে ৫৮৯ এবং মাল্টি কোরে এসেছে ১৬৪৪।

ডিসপ্লে

ডিভাইসটিতে রয়েছে ৫.৭২ ইঞ্চি এর এইচডি আইপিএস প্যানেল। আর আকর্ষনীয় বিষয় হল এটি একটি ১৮:৯ রেশিও এর ফুল ভিউ ডিসপ্লে। গেমিং,মুভি ওয়াচিং এর ক্ষেত্রে থাকছে প্লাস পয়েন্ট। এটি এইচডি তথা হাই ডেফিনেশন ডিসপ্লে যার রেজুলেশন ১৪৪০*৭২০ পিক্সেল। ডিভাইসটি ৫ ফিংগার মাল্টিটাচ সাপোর্টেড। আইপিএস ডিসপ্লে হওয়ার কারনে নি:সন্দেহে ভিউইং অ্যাঙ্গেল নিয়ে কোন সমস্যা হওয়ার কথা না। ডিসপ্লেটি সাইড দিয়ে ২.৫ ডি কার্ভড হওয়ার কারনে স্মার্টফোনের ডিজাইনকে এটি বাড়িয়ে দিয়েছে কয়েকগুণে। ডিসপ্লেটি ২৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্টেড।

ক্যামেরা

প্রিমো আর ফাইভ প্লাস ডিভাইসটির পিছনে/রিয়ার প্যানেলে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল বিএসআই সেন্সরযুক্ত ক্যামেরা। এই ক্যামেরায় সিঙ্গেল এলইডি ফ্ল্যাস এবং অটোফোকাস সুবিধা থাকছে। এবং সামনে রয়েছে একটি ৮ মেগাপিক্সেল BSI সেন্সরযুক্ত ক্যামেরা সাথে থাকছে একটি সফট এলইডি ফ্ল্যাশ। রয়েছে বেশ কিছু ক্যামেরা সেটিংস।আর শুটিং মোড হিসেবে রয়েছে ; নরমাল মোড, ফেস বিউটি, এইচডিআর, স্ক্রীন মোড। ফ্রন্ট ক্যামেরায় সফট এলিডি ফ্ল্যাশ পাওয়া যাবে। আর ডিভাইসটির এই ক্যামেরা ১০৮০*১৯২০ পিক্সেলে এইচডি ভিডিও রেকর্ড করতে পারে।

সিকিউরিটি

ওয়ালটন এখানে নতুন এই প্রিমো আর৫ ডিভাইসে যে ইন্টিগ্রেটেড একটি ফিচারকে বিশেষভাবে তুলে ধরেছে সেটি হল এর ফেস আনলক ফিচার। ওয়ালটন এই স্মার্টফোনে তাদের দেয়া ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এর সাহায্যে বাবহারকারিদের ফেস আনলক এর মত সুবিধা প্রদান করবে; যদিও হার্ডওয়্যার এর পাশাপাশি এখানে সফটওয়্যার এর ভুমিকাও সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়া ও স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে নিচের দিকে পাওয়া যাবে একটি ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর। যার দ্বারা ফোন লক, আলক ও সেলফি ক্যাপচারের ক্ষেত্রে বেশ ভূমিকা পালন করে। ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সরের রেসপন্স যথেষ্ট ফাস্ট ছিলো, চোখের পলকেই এটি কাজ করে।

মাল্টিমিডিয়া

ফোনটিতে ফুল এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক করা যাবে এ ছাড়া  থাকছে এফ এম রেডিও ও সাউন্ড রেকর্ডার ।

কানেকটিভিটি

কানেকটিভিটি ফিচার হিসেবে রয়েছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪.২, ইউএসবি ভি-২, ওটিজি, ওটিএ এবং ওয়ারলেস ডিসপ্লে। দুটি মাইক্রো সিম ব্যবহারের সুবিধাসম্পন্ন ফোনটি থ্রিজি, ফোরজি এবং সিডিএমএ নেটওয়ার্ক সমর্থন করে।

স্পেশাল ফিচার

স্পেশাল ফিচার গুলোর মধ্যে রয়েছে গেসচার,  স্পিড বুস্টার, আপস লক, স্মার্ট অ্যাসিস্ট, ফাইল লক সহ ইচ্ছে মত ফিঙার প্রিন্ট সেট করার সুবিধা।

প্রাইজ আর বিল্ড কোয়ালিটি বিবেচনা করলে দশ হাজারের আসে পাশে ফোর জি সাপোর্টেড, প্রিমিয়াম ডিজাইন, ৩জিবি র‍্যাম আর নানা ফিচার সমৃদ্ধ স্মাটফোন প্রিমো আর ফাইভ প্লাস খারাপ না। যারা টাইট বাজেটের মধ্যে স্মাটফোন কিনবেন ভাবছেন, তারা অবশ্যই প্রিমো আর ফাইভ প্লাস দেখতে পারেন।