Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

আরএক্স৭ মিনি Vs জেড২০ : তাহলে বিজয়ী কে?

সম্প্রতি বাজারে লঞ্চ হয়েছে দেশের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন এবং সিম্ফোনির দুটি ৪জি স্মার্টফোন। এবং দুটি স্মার্টফোনই ৩ জিবি র‍্যাম এবং এবং ৩২ জিবি র‍্যাম সমৃদ্ধ। আর মজার ব্যাপার হচ্ছে দুটির দামই ৮হাজারের ঘরের মধ্যে এবং ৯হাজারের ঘরের নিচে। এর মধ্যে ওয়ালটনএর প্রিমো আরএক্স৭ মিনি এর দাম ৮৭৯৯ টাকা, যা কিছু দিন আগে প্রিঅর্ডারে ছিল ৭৭৯৯ টাকা। এবং সিম্ফোনির জেড২০ এর দাম ৮৯৯০ টাকা। তো আজকের এই পোস্টে দেয়ার চেষ্টা করব, জেড২০ এবং আরএক্স৭ মিনি এর বিস্তারিত কম্প্যারিসন তথা তুলনা; এবং আপনাদের জানানের চেষ্টা করব, তাহলে আপনি কোনটি কিনবেন আরএক্স৭ মিনি নাকি জেড২০?

সিস্টেম হার্ডওয়্যার এবং বেঞ্চমার্ক স্কোর

যদিও দুইটি ডিভাইসেই আমরা ৩ জিবি র‍্যাম এবং ৩২ জিবি রম পাব। তবে সিম্ফোনি জেড২০ এর মূল প্রাণশক্তি হিসেবে থাকছে ইউনিএসোসিয়েট চিপসেট, যা একটি ১.৬ গিগাহার্জ ক্ষমতা সম্পন্ন অক্টাকোর প্রসেসর। অন্যদিকে ওয়ালটন প্রিমো আর-এক্স৭ মিনিতে পাওয়া যাবে ১.৮ গিগাহার্জ ক্ষমতা সম্পন্ন অক্টাকোর মিডিয়াটেক এর হেলিও পি৬০ চিপসেট। আর এটি মিডিয়াটেক এর একটি ফ্লাগসিপ ক্যাটেগরির চিপসেট। রিয়েলমি৩ এবং অপো এফ৯ এর মত স্মার্টফোনেও এই একই হেলিও পি৬০ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছিলো। আর এই দিক দিয়ে প্রিমো আরএক্স৭ মিনি থেকে সিম্ফোনি জেড ২০ পিছিয়ে আছে।

প্রিমো আরএক্স ৭ মিনি

জেড২০

এনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর দিক দিয়ে ওয়ালটন প্রিমো আরএক্স৭ মিনির এসেছে ১৪৫৪৮৯ এবং সিম্ফোনি জেড২০ তে এসেছে ৯৩৮১৭। প্রিমো আরএক্স৭ মিনি’তে এক্সটারনাল এসডি কার্ড সাপোর্ট করবে ১২৮ জিবি পর্যন্ত। তবে জেড২০ এদিক দিয়েও খুব গ্রাহকদের ডিজেপয়েন্ট করেছে কেননা সিম্ফোনি এর ওয়েবসাইট মতে, সেখানে ৬৪ জিবি পর্যন্ত এসডি কার্ড সাপোর্ট করবে।

প্রিমো আরএক্স৭ মিনি’তে পাবেন মালি জি৭২ এমপি৩ জিপিইউ, আর জেড২০ তে পাওয়া যাবে পাওয়ারভিআর রগ ৮৩২২ জিপিইউ। আর বেঞ্চমার্ক স্কোরে আমরা যদি জিপিইউ স্কোরের দিকে তাকাই, সেখানেও দেখতে পারব ব্যাপক তফাত। সিম্ফোনি জেড২০ এর জিপিইউ স্কোর এসেছে ৫৫৬৫। অন্যদিকে প্রিমো আরএক্স৭ মিনি’তে জিপিইউ স্কোর এসেছে ২২৬০৭। সুতরাং প্রিমো আরএক্স৭ মিনি নিতান্তই একটি গেমিং ডিভাইস এবং দাম হিসেবে হার্ডওয়্যারের দিক দিয়ে খুবই ইনরিচ, যার সাথে সিম্ফোনি জেড২০ কোনভাবেই পারবে না।

জেড২০ তে কিছুটা ল্যাগ দেখা গিয়েছিল

আর গেমিং এক্সপেরিয়েন্সে জেড২০ তে কল-অফ-ডিউটি, পাবজি এর শুরুতে একটু ল্যাগি ভাব থাকলেও। প্রিমো আরএক্স৭ মিনি’তে তেমন কোন কিছু লক্ষ্য করা যায়নি। তবে পরামর্শ থাকবে অবশ্যই মিড গ্রাফিক্স সেটিংসে খেলবেন। যা ফোনের ব্যাটারির জন্যেও ভালো হবে।

ডিজাইন এবং ডিসপ্লে

মূলত সিম্ফোনি তাদের ডিজাইন দিয়ে গ্রাহকদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা করেছে। ডিভাইসটি ৫০% ব্লু এবং ৫০% ব্ল্যাক এর এক গ্র্যাডিয়েন্ট কম্বিনেশন কালারে পাওয়া যাবে । অন্যদিকে প্রিমো আরএক্স৭ মিনি এর ডিজাইন কোনো দিকদিয়ে পিছিয়ে একটা বললে ভুল হবে, আরএক্স৭ মিনি এর ডিজাইন যথেষ্ট ক্লাসি। প্রিমো আরএক্স৭ মিনিতে জেড২০ এর মতন গ্র্যাডিয়েন্ট ফিনিস দেয়া হয়নি। প্রিমো আরএক্স৭ মিনি মিডনাইট পারপেল, মিডনাইট ব্লু এবং পিউর ব্ল্যাক কালারে পাওয়া যাবে। আর জেড২০ পাওয়া যাবে কেবল একটি নীল কালার ভেরিয়েন্টে।

প্রিমো আরএক্স৭ মিনি

জেড২০

দুটি ডিভাইসই হাইব্রিড সিম স্লট ব্যবহার করে। অর্থাৎ আপনি দুটি সিম স্লট এর পাশাপাশি একটি এসডি কার্ড ব্যবহার করতে পাচ্ছেন। তবে সিম্ফোনির আপার প্যানেলে দেয়া ইউএসবি স্লট অনেকের কাছে বিরক্তিকর মনে হতে পারে। তবে ইউএসবি পোর্ট এর কথা বলতে গেলেও ওয়ালটন প্রিমো আরএক্স৭ মিনি এগিয়ে রয়েছে, কেননা ডিভাইসটির বটম প্যানেলে আপনি পাবেন ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট।ডিভাইস দুটিতেই আপনি ৩০০০ এমএএইচ ক্ষমতা সম্পন্ন ব্যাটারি পাবেন, তবে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট থাকার কারনে আরএক্স৭ মিনি’তে চার্জিং একটু ফাস্ট হবে। আর ডাটা ট্রান্সফারিং এর দিক দিয়েও আরএক্স৭ মিনি থাকবে এগিয়ে।

প্রিমো আরএক্স৭ মিনি’তে পাওয়া যাবে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট

জেড ২০ তে পাবেন রেগুলার ইউএসবি পোর্ট

ডিভাইস দুইটিতেই এইচডি+ রেজুলেসনের আইপিএস ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। ওয়ালটনে দেয়া হয়েছে ৫.৯ ইঞ্চি এর ডিসপ্লে। আর সিম্ফোনিতে থাকছে ৬.২৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে। তবে ওয়ালটনের ডিসপ্লেতে সিম্ফোনির চেয়ে একটু বেশি শার্পনেস লক্ষ্য করা গিয়েছে; পাশাপাশি কালার ডিটেইলসও ওয়ালটনে ছিল একটু বেশি। সিম্ফোনিতে আপনি পাবেন ওয়াটার ড্রপ নচ। অন্যদিকে আরএক্স৭ মিনিতে পাচ্ছেন একটু বড় আকারের নচ, তবে সেটিংস থেকে আপনি নচকে হাইডও করে রাখতে পারবেন। নচ ছোটো এর কারনে সিম্ফোনি লাইট সেন্সর’কে বাদ দিয়েছে, অন্যদিকে আরএক্স৭ মিনি’তে লাইট প্রক্সিমিটি এসব সেন্সর থাকছেই।

ক্যামেরা

জেড২০ এবং আরএক্স৭ মিনি ডিভাইস দুইটিতেই ডুয়াল ক্যামেরা মডিউল থাকলেও, আবারও এগিয়ে থাকছে আরএক্স৭ মিনি। জেড২০ তে প্রাইমারি ক্যামেরা সেন্সর হিসেবে ১৩ মেগাপিক্সেল এবং সেকেন্ডারি হিসেবে থাকছে ২ মেগাপিক্সেল এর ক্যামেরা সেন্সর। অন্যদিকে প্রিমো আরএক্স৭ মিনি’তে থাকছে ১৩ মেগাপিক্সেল এর প্রাইমারি এবং ৫ মেগাপিক্সেল এর সেকেন্ডারি সেন্সর। যেখানে ৫ মেগাপিক্সেল এর ক্যামেরাটি ডেপথ সেন্সিং এর কাজ করবে। দুটি ফোনের ক্যামেরার ইউআই’ই স্টক হলেও আপনি প্রিমো আরএক্স৭ মিনি এর ক্যামেরা ইউআইতে কিছু ফিচারস বেশি পাবেন।

আর বিএসআই সেন্সর বিশিষ্ট হওয়ার ফলে প্রিমো আর এক্স৭ মিনিতে লো-লাইট ক্যাপচারিং এও দারুন পারফর্মেন্স পাওয়া যাবে। নিচে কিছু ছবি যুক্ত করে দিলাম যার মাধ্যমে আপনি জেড২০ এবং আরএক্স৭ মিনির ক্যামেরা কোয়ালিটি সম্পর্কে জানতে পারবেন। কোয়ালিটি অনেকটা কাছাকাছি হলেও, সিম্ফোনির চাইতে ওয়ালটনে ক্যামেরায় তোলা ছবির শার্পনেস আমার কাছে বেশি মনে হয়েছে।

দুটি ফোনেই ফ্রন্ট ফেসিং এ থাকছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। তবে কোন ক্যামেরায় ছবি ভালো আসবে তা স্যাম্পল ইমেজ দেখে যাচাই করুন।

পরিশেষে

পরিশেষে বলতে গেলে, আপনি যদি এই বাজেটে ফোন কিনতে চান, তবে নিঃসন্দেহে আমার কাছে সব দিক দিয়ে আরএক্স৭ মিনি কেনার পরামর্শ থাকবে। যদিও আরএক্স৭ মিনি এর ডিজাইনও অসাধারন, তবে কিছুটা ডিজাইন এর দোহাই দিয়ে প্রায় ২০০ টাকা বেশি দিয়ে সিম্ফোনি জেড২০ স্মার্টফোনটি কেনা আমার কাছে যুক্তিযুক্ত মনে হয়না। পরিশেষে মাত্র ৮৭৯৯ টাকায় এমন সব ফিচার দিয়ে প্রিমো আরএক্স৭ মিনি বাজারে লঞ্চ করার জন্য ওয়ালটন অবশ্যই প্রশংসার দাবি রাখে।